ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৬ জুলাই ২০২৪ ||  শ্রাবণ ১ ১৪৩১

বিএনপির সাংগঠনিক শক্তি দুর্বল

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:৪৯, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩  

বিএনপির সাংগঠনিক শক্তি দুর্বল

বিএনপির সাংগঠনিক শক্তি দুর্বল

আন্দোলনের গতি বাড়াবেন এবং একটি চূড়ান্ত পরিণতির লক্ষ্যে আন্দোলনকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করবেন এমনটাই বলছেন বিএনপির নেতারা। তাদের হাতে সময় আছে মাত্র ৪০ দিন। আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর ঢাকায় সমাবেশ ডেকেছে বিএনপি। দলটির নেতারা দাবি করেছেন, এই সমাবেশ থেকে লাগাতার আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে ২৫ অক্টোবর এই ৪০ দিন পরীক্ষা দিতে হবে বিএনপিকে। ৪০ দিনের মধ্যে যদি বিএনপি একটি বড় ধরনের আন্দোলন গড়ে তুলতে না পারে তাহলে তারা নির্বাচনের পথে হাঁটবে। এমনটাই জানিয়েছে বিএনপির একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র।

এর আগেও অবশ্য বিএনপি বহুবার লাগাতার কর্মসূচি ঘোষণা করার কথা বলেছিল। নানা কর্মসূচি বাস্তবায়নে মাঠেও নেমেছিল। কিন্তু আশার সে হালে কোনো পানি পায়নি বিএনপি। দলটির নেতৃবৃন্দ বলছেন, এখন তাদের হাতে আর সময় নেই। আগামী নির্বাচনকে প্রতিহত করার জন্য একটি বড় ধরনের আন্দোলনের কোনো বিকল্প নেই। তবে বড় ধরনের আন্দোলনের কথা শুধু তাদের মুখেই। গত ১৫ বছরে বিএনপি বড় ধরনের কোন আন্দোলন গড়ে তুলতে ব্যর্থ হয়েছে।

বিএনপির নেতারা বলছেন, আন্দোলনে বারবার ব্যর্থ হওয়ায় বিএনপির মধ্যে এখন ক্রমশ হতাশা দানা বেঁধে উঠছে। পশ্চিমা দেশগুলো এখন তাদের এক দফা কর্মসূচির সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করছে। বিএনপিকে বর্তমান সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছে পশ্চিমারা।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির এক সদস্য বলেছেন, আমাদের হাতে আছে মাত্র ৪০ দিন। এই ৪০ দিনের মধ্যে এমন কিছু করতে হবে যা সরকারকে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবি মানতে বাধ্য করা হবে অথবা এমন একটা পরিস্থিতি তৈরি করতে হবে যে পরিস্থিতিতে সরকার নির্বাচনের ব্যাপারে একটি সমঝোতা করতে বাধ্য হয়।

অন্যদিকে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, বিএনপির এখনো সাংগঠনিক শক্তি দুর্বল। দলটির নেতাকর্মীরা সংগঠিত নয়, বহু নেতা কর্মীর বিরুদ্ধে নানান রকম মামলা রয়েছে। এরকম বাস্তবতায় আন্দোলন বিএনপির জন্য ঝুঁকি বাড়াবে। এর ফলে বড় ধরনের অস্তিত্বের সংকটে পড়বে দীর্ঘদিন ক্ষমতার বাইরে থাকা দলটি। এই বাস্তবতায় এই ৪০ দিনে বিএনপি কি করতে পারে সেটাই দেখার বিষয়।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়