ঢাকা, সোমবার   ২৮ নভেম্বর ২০২২ ||  অগ্রাহায়ণ ১৩ ১৪২৯

মেয়েকে সময় দিতে মোটা অংকের বেতনের চাকরি ছাড়লেন বাবা

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১০:২৫, ২২ নভেম্বর ২০২২  

মেয়েকে সময় দিতে মোটা অংকের বেতনের চাকরি ছাড়লেন বাবা

মেয়েকে সময় দিতে মোটা অংকের বেতনের চাকরি ছাড়লেন বাবা

কিছুদিন আগে কন্যা সন্তানের বাবা হয়েছেন ভারতের মুম্বাইয়ের বাসিন্দা অঙ্কিত যোশী। এতে যারপরনাই খুশি তিনি। কিন্তু কাজের জন্য প্রিয় কন্যাকে সময় দেওয়া সম্ভব হতো না। তাই মোটা অংকের বেতনের চাকরিটাই ছেড়ে দিয়েছেন অঙ্কিত। বলছেন, ‘পিতৃত্বের পদোন্নতি’ হয়েছে তার।

খড়গপুর আইআইটির গ্রাজুয়েট অঙ্কিত একটি বহুজাতিক সংস্থার ‘সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট’ পদে চাকরি করতেন।

মেধাবী এই যুবক হিউম্যানস অব বোম্বেকে জানিয়েছেন, সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার কয়েক আগেই চাকরি ছেড়ে দিয়েছেন৷ তিনি জানেন, অনেকের কাছেই তার সিদ্ধান্তটা আজব বলে মনে হবে৷ কেউ কেউ তাকে কঠিন ভবিষ্যতের কথাও মনে করিয়ে দিয়েছেন৷ কিন্তু অঙ্কিত সেসবে কান দেননি৷ স্ত্রী আকাঙ্ক্ষা পাশে রয়েছেন৷ সংসারে নতুন অতিথি এসেছে। এটাই তার কাছে সব।

অঙ্কিত বলেন, ইচ্ছা থাকলেও সবাই আমার মতো এমন সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন, তা নয়। তবে আমার মনে হয়, এই এক মাস ধরে আমি যে সময় কাটাচ্ছি, তা সারা বছরের ব্যস্ততার চেয়ে অনেক আনন্দের। এমনকি, সন্তান জন্মানোর আগেই আমি এই সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছিলাম।

চাকরিতে যোগ দেওয়ার আগে থেকেই অঙ্কিত জানতেন, কাজের জন্য অনেকটা সময় নিজের শহরের বাইরে থাকতে হবে। কিন্তু তার মন পড়ে থাকবে মেয়ের কাছেই।

কন্যার নাম উল্লেখ করে অঙ্কিত বলেন, স্পিতির জন্মের পর আমিও কাজ থেকে লম্বা বিরতি চাচ্ছিলাম। কিন্তু আমি যে সংস্থায় এবং যে পদে কাজ করি, সেখান থেকে বারবার ছুটি নেওয়া সম্ভব ছিল না।

মেয়ের জন্মের পর আকাঙ্ক্ষা এবং অঙ্কিত, দু’জনের জীবনেই এক নতুন অধ্যায় শুরু হয়েছে। আকাঙ্ক্ষা তার অফিস থেকে মাতৃত্বকালীন ছুটি পেয়েছেন। কিন্তু অঙ্কিতের জন্য এমন ছুটির ব্যবস্থা নেই। ‘আকাঙ্ক্ষা যেভাবে কাজ ও মায়ের ভূমিকা পালন করছে, তা দেখে আমার সত্যিই ভালো লাগে। কাজ সামলে আমি তো মেয়ের সঙ্গে থাকতে পারবো না। তাই এই সিদ্ধান্ত,’ বলেছেন অঙ্কিত।

তবে কয়েক মাসের বিরতি নিয়ে আবার নতুন কোনো প্রতিষ্ঠানে যোগ দেবেন বলে জানিয়েছেন এই যুবক। মেয়ের সঙ্গে তার ছবি ও বার্তা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়তেই অভিনন্দনের জোয়ার ও মন্তব্যের বন্যা বইছে। অঙ্কিতের এই সিদ্ধান্তে সমর্থন জানিয়েছেন বহু মানুষ। কেউ আবার পিতৃত্বকালীন ছুটির নিয়মের জন্যে জোর দাবি জানিয়েছেন।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়