ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৬ জুলাই ২০২৪ ||  শ্রাবণ ১ ১৪৩১

মোংলা থেকে খুলনা রুটে রেল চলবে অক্টোবরের শেষে

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:৪৬, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩  

মোংলা থেকে খুলনা রুটে রেল চলবে অক্টোবরের শেষে

মোংলা থেকে খুলনা রুটে রেল চলবে অক্টোবরের শেষে

মোংলা-খুলনা রুটে আগামী মাসের (অক্টোবর) শেষ সপ্তাহে রেল চলাচল শুরু হবে। এর মাধ্যমে মোংলা বন্দরের সঙ্গে সহজ হবে সারাদেশের রেল যোগাযোগ। এই রেলপথের কারণে বিভিন্ন পণ্য মোংলা বন্দরে আনা-নেওয়া করা যাবে আরও কম খরচে।

গত সপ্তাহে মোংলা-খুলনা রেললাইনের নির্মাণকাজ পরিদর্শনে আসেন প্রকল্প পরিচালক মো. আরিফুজ্জামান। তখন সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, প্রায় ৯৮ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। টুকটাক যেসব কাজ আছে, সেগুলো এ মাসেই শেষ হবে। সে ক্ষেত্রে অক্টোবরের শেষদিকে এ রেলপথ উদ্বোধন করা সম্ভব হবে।

খুলনার ফুলতলা রেলস্টেশন থেকে মোংলা বন্দরের জেটি পর্যন্ত রেলপথ স্থাপনের এ প্রকল্পের কাজ শুরু হয় ২০১০ সালে; শেষ হওয়ার কথা ছিল ২০১৩ সালের ডিসেম্বরে। প্রকল্পের কাজ চলে তিন ভাগে। এর মধ্যে রয়েছে রূপসা নদীর ওপর রেলসেতু নির্মাণ; মূল রেললাইন স্থাপন এবং টেলিকমিউনিকেশন ও সিগন্যালিং স্থাপন। প্রথম দফায় প্রকল্পটির ব্যয় ধরা হয় ১ হাজার ৭২১ কোটি টাকা। এরপর প্রথম সংশোধনীতে ব্যয় বেড়ে দাঁড়ায় ৩ হাজার ৮০১ কোটি টাকায়। সর্বশেষ ২০২২ সালের ৩১ ডিসেম্বর দ্বিতীয় দফা সংশোধনে ব্যয় বেড়ে দাঁড়ায় ৪ হাজার ২৬০ কোটি টাকায়। এর মধ্যে ভারতের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ‘লারসেন অ্যান্ড টুব্রো’ রূপসা নদীর ওপর রেলসেতুর নির্মাণকাজ করেছে। বাকি কাজ করেছে ভারতের আরেক ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ‘ইরকন ইন্টারন্যাশনাল’।

মোংলা বন্দরের ব্যবসায়ী মোস্তাক আহমেদ মিঠু বলেন, ‘এই রেলপথের কারণে বিভিন্ন পণ্য আরও কম খরচে মোংলা বন্দরে আনা-নেওয়া করা যাবে।’

খুলনা-৫ আসনের (ফুলতলা-ডুমুরিয়া) সংসদ সদস্য নারায়ণচন্দ্র চন্দ জানিয়েছেন, এই রেললাইন ভবিষ্যতে আন্তঃদেশীয় রেলপথ হিসেবে গড়ে তোলার পরিকল্পনা রয়েছে।

বাগেরহাট-৩ আসনের সংসদ সদস্য এবং পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তনবিষয়ক উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার বলেন, ‘রেললাইনটি ভারত, নেপাল ও ভুটানের সঙ্গে পণ্য পরিবহনে বিশেষ ভূমিকা রাখবে। বিশেষ করে চিংড়ি ও গার্মেন্টস পণ্য পরিবহন সহজ হবে।’

সর্বশেষ
জনপ্রিয়