ঢাকা, রোববার   ২৯ জানুয়ারি ২০২৩ ||  মাঘ ১৫ ১৪২৯

ময়মনসিংহে চেচুয়া বিলজুড়ে শাপলার গালিচা

নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৫:০৪, ২৬ অক্টোবর ২০২২  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

দূর থেকে দেখলে মনে হবে যেন ফুলের বিছানা পেতে রেখেছে কেউ। যতদূর চোখ যায়, সবুজের মাঝে রক্তিম আভা হাতছানি দেয়। ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার চেচুয়া বিলের কালচে পানিতে সবুজ পাতার ওপর মাথা উঁচু করে সৌন্দর্য ছড়াচ্ছে লাল শাপলা। বিলের নীরব পরিবেশে প্রকৃতি যেন এখানে ছড়িয়ে রেখেছে ভিন্ন এক রূপের বাহার।

সপ্তাহের সাত দিনই কাকডাকা ভোর থেকে লাল শাপলার বিলে ভিড় জমায় দর্শনার্থীরা। তবে ছুটির দিনে ভিড় বেড়ে যায় কয়েকগুণ। কেউ আসছেন বন্ধুদের সঙ্গে, কেউ আবার পরিবার কিংবা স্বজনদের নিয়ে। বিলের পানিতে নৌকা ভাসিয়ে আনন্দে মেতে উঠছেন তারা। পর্যটকদের নিয়মিত আনাগোনায় চাঙা হয়ে উঠেছে স্থানীয় অর্থনীতিও।

ত্রিশাল উপজেলা সদর থেকে প্রায় সাড়ে ৩ কিলোমিটার দূরে রামপুর ইউনিয়নে এই বিলের অবস্থান। সারা দেশের মানুষ বিলকে চিনেছে একটি অলৌকিক ঘটনার গুজবকে কেন্দ্র করে। দীর্ঘ দিন সাধারণ মানুষের প্রবেশ নিষিদ্ধের কারণেই বিলটি প্রকৃতির এক অপরূপ রূপ মেলে ধরেছে।

স্থানীয় বাসিন্দা ইদ্রিস আলী জানান, প্রাকৃতিক কারণে শাপলার সৌন্দর্য উপভোগ করতে হলে ভোরেই এখানে থাকতে হবে। কারণ সূর্য উঠার সঙ্গে সঙ্গে শাপলা ফুল নিজেকে মেলে ধরতে শুরু করে, তখন চারপাশে ছড়িয়ে পড়ে রক্তিম আভা। আর সূর্য প্রখর হলে ধীরে ধীরে গুটিয়ে নেয় নিজেকে। যারা এ বিষয়ে জানেন, তারা ভোরেই চলে আসেন।

মাহবুব আলম নামে আরেকজন বলেন, গোটা বিল এখন লাল শাপলায় ভরে গেছে। ভোরে কুয়াশা পড়তে শুরু করেছে। প্রতিদিন সূর্যোদয়ের সময় পূব আকাশে ছড়িয়ে যাওয়া লাল আভার সঙ্গে শাপলার লাল রং মিলে প্রকৃতি এক অপরূপ রং ধারণ করে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, শাপলার বিলে নৌকায় ঘুরে বেড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে অনেকে সেলফি তুলছেন। কেউ শাপলা তুলে আটি বাঁধছেন। আবার নারীদের কেউ শাপলার লতা মাথায় পেঁচিয়ে নিজেকে প্রকৃতির সঙ্গে একাত্ম করছেন।

বিলের সৌন্দর্যে মুগ্ধ ফারজানা তান্বি নামে এক শিক্ষার্থী বলেন, কোলাহলমুক্ত এ বিলে নৌকায় ঘুরতে খুব ভালো লেগেছে। এখানে তোলা ছবিগুলোও খুব সুন্দর হয়েছে। অনেকদিন পর সকালটা খুবই ভালো কেটেছে। ইচ্ছে করছে বারবার এখানে ছুটে আসি। কেননা বিশুদ্ধ বাতাসে ঘুরে বেড়ানোর উত্তম জায়গা এটি।

ময়মনসিংহ নগরের চরপাড়া মোড় থেকে বাসে বা সিএনজিতে করে ৪০ টাকা ভাড়ায় যেতে হবে ত্রিশাল উপজেলা সদরের বাসস্ট্যান্ড মোড়ে। সেখান থেকে বালিপাড়া রোডে অটোরিকশা বা ভ্যানে করে ১০ টাকা ভাড়ায় যেতে হবে মৃধাবাড়ি মোড়। সেই মোড় থেকে গ্রামের মেঠোপথ ধরে ৫ মিনিট হাঁটলেই পৌঁছানো যাবে চেচুয়া বিলে। সেখানে সারি সারি করে রাখা নৌকায় ২০-২৫ মিনিটের জন্য জনপ্রতি ৫০ টাকা ভাড়ায় বিল ঘোরাবে মাঝিরা। চাইলে ঘণ্টা চুক্তিতেও নেওয়া যাবে নৌকা।

সারাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত
সর্বশেষ
জনপ্রিয়