ঢাকা, বুধবার   ২৯ জুন ২০২২ ||  আষাঢ় ১৬ ১৪২৯

টিকটকাররা ভাইরাল হতে বনে আগুন লাগাচ্ছে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ১০:৩৬, ১৮ মে ২০২২  

সংগৃহীত

সংগৃহীত

সম্প্রতি টিকটকে একটি ভয়ংকর ট্রেন্ড চালু হয়েছে। মাত্র কয়েক সেকেন্ডের ভিডিও বানাতে বন-জঙ্গলে আগুন লাগাচ্ছে টিকটকাররা। বিপজ্জনক এই ধারা আটকাতে পাকিস্তানে আইন প্রণয়নের দাবি জানিয়েছেন দেশটির বন্যপ্রাণী বিভাগের কর্মকর্তারা।

কয়েকদিন আগে সামান্য এক টিকটক ভিডিওর জন্য দুই যুবক মারগাল্লা পাহাড়ের জঙ্গলে আগুন দেওয়ার একটি ভিডিও ব্যাপক সমালোচনা ও ক্ষোভের জন্ম দেয়। ভিডিওতে এক টিকটকারকে গ্যাসলাইট দিয়ে জঙ্গলে আগুন দিতে দেখা যায়।

আরেকটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে, যেখানে এক নারী টিকটকার তার ভিডিওতে ‘ড্রামাটিক ইফেক্টস’ যোগ করতে জঙ্গলে আগুন ধরিয়ে দিয়েছেন। টিকটক ভিডিও বানাতে জঙ্গলের কয়েক ডজন গাছ পুড়িয়ে ছাই করে দিয়েছেন তিনি।

এর আগে অ্যাবোটাবাদের একটি জঙ্গলে আগুন দেওয়ায় আরেক টিকটকারকে হেফাজতে নিয়েছিলেন পাকিস্তানের বন্যপ্রাণী বিভাগের কর্মকর্তারা।

টুইটারে সেই নারী টিকটকারের ভিডিও শেয়ার করে ইসলামাবাদের বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা বোর্ডের চেয়ারপারসন রিনা এস খান সাট্টি বলেছেন, টিকটকে এটি বিরক্তিকর ও সর্বনাশা প্রবণতা! এই গরম ও শুষ্ক মৌসুমে ফলোয়ার পেতে মরিয়া তরুণ-তরুণীরা জঙ্গলে আগুন ধরিয়ে দিচ্ছে!

অস্ট্রেলিয়ায় জঙ্গলে আগুন দিলে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের বিধানের কথা উল্লেখ করে তিনি দাবি জানিয়েছেন, পাকিস্তানেও এ ধরনের আইন করা হোক।

রিনার মতে, এসব মানসিক বিকারগ্রস্ত তরুণদের অবিলম্বে কারাগারে পাঠাতে হবে! এ কারণে এ ধরনের ঘটনার কোনো তথ্য থাকলে তা দ্রুত পাকিস্তান বন্যপ্রাণী বোর্ডকে জানানোর অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

টিকটকের প্রতিক্রিয়া
বনে আগুন লাগানোর এই ট্রেন্ড সম্পর্কে এক বিবৃতিতে টিকটক কর্তৃপক্ষ বলেছে, বিপজ্জনক বা বেআইনি আচরণ প্রচার করে এমন বিষয়বস্তু আমাদের নীতির লঙ্ঘন এবং সেগুলো এই প্ল্যাটফর্মে অনুমোদিত নয়।

টিকটকের ভাষ্যমতে, বিপজ্জনক বা বেআইনি কাজগুলো চিহ্নিত করে আমরা সেগুলো হয় অপসারণ, সীমিতকরণ অথবা লেবেল যোগ করে দেই। আমরা ব্যবহারকারীর সুরক্ষার প্রতি আমাদের প্রতিশ্রুতিতে সর্বদা সজাগ এবং প্রত্যেককে তাদের আচরণে সতর্কতা ও দায়িত্ববোধ বজায় রাখতে উত্সাহিত করি, তা সে অনলাইনেই হোক বা অফলাইনে।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়