ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৮ অক্টোবর ২০২১ ||  কার্তিক ১২ ১৪২৮

বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত ৫২ লাখ ছাড়ালো

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:৪৭, ২২ মে ২০২০  

বিশ্বব্যাপী প্রতিনিয়ত মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়ছে। এরইমধ্যে আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় ৫২ লাখ মানুষ। 

শুক্রবার আন্তর্জাতিক জরিপকারী সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যানুযায়ী, বিশ্বে করোনাভাইরাসে এখন পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৩ লাখ ৩৪ হাজার ৩০৭ জনের। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৫১ লাখ ৯৮ হাজার ৩০৭। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২০ লাখ ৮৩ হাজারেরও বেশি মানুষের।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহান থেকে ছড়িয়ে পড়ে করোনাভাইরাস। এ পর্যন্ত বিশ্বের ২১৩টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে এই ভাইরাসটি।

উৎপত্তিস্থল চীনে ৮৩ হাজারেরও বেশি মানুষ আক্রান্ত হলেও সেখানে ভাইরাসটির প্রাদুর্ভাব কমে গেছে। তবে বিশ্বের অন্যান্য দেশে এই ভাইরাসের প্রকোপ বাড়ছে। চীনের বাইরে করোনাভাইরাসের প্রকোপ ১৩ গুণ বৃদ্ধি পাওয়ার প্রেক্ষাপটে গত ১১ মার্চ দুনিয়াজুড়ে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্যমতে, এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা যুক্তরাষ্ট্রে। সেখানে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৬ লাখ ২০ হাজার ৯০২। মৃত্যু হয়েছে ৯৬ হাজার ৯৫৫ জনের।

দ্বিতীয় সর্বোচ্চ আক্রান্ত রাশিয়ায় করোনার শিকার ৩ লাখ সাড়ে ১৭ হাজারের বেশি। সে তুলনায় অবশ্য প্রাণহানি অনেকটা কম পুতিনের দেশে। এখন পর্যন্ত সেখানে মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজার ৯৯ জনের।

করোনার হটস্পট ব্রাজিলে সমান তালে বাড়ছে আক্রান্ত ও প্রাণহানি। লাতিন আমেরিকার দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৩ লাখ প্রায় ১১ হাজার মানুষ করোনার আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে গত একদিনেই আক্রান্ত সাড়ে ১৭ হাজারের বেশি মানুষ। মৃত্যু হয়েছে নতুন করে ১ হাজার ১৮৮ জনের। যাতে মোট সংখ্যা বেড়ে ২০ হাজার ছাড়িয়েছে। 

নিয়ন্ত্রণে আসা স্পেনে আক্রান্ত ২ লাখ সাড়ে ৮০ হাজার ১১৭ জন। এর মধ্যে প্রাণহানি ২৮ হাজার ছুঁই ছুঁই।  

যুক্তরাজ্যে সংক্রমণ আড়াই লাখ ছাড়িয়েছে। মৃত্যু হয়েছে সেখানে ৩৬ হাজারের বেশি মানুষের। যা করোনায় দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মৃত্যু।  

ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া ও আংশিক লকডাউনে থাকা ইতালিতে প্রায় সাড়ে ৩২ হাজার মানুষ করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন। আক্রান্ত ২ লাখ সাড়ে ২৮ হাজারের বেশি। 

আক্রান্ত বেড়েছে ফ্রান্সে। ইউরোপের দেশটিতে করোনা হানা দিয়েছে ১ লাখ প্রায় ৮২ হাজার মানুষের দেহে। যেখানে মৃত্যু হয়েছে ২৮ হাজার ২১৫ জনের। 

প্রাণহানি ততটা না হলেও আক্রান্ত বেড়েছে জার্মানিতেও। দেশটিতে ১ লাখ ৭৯ হাজার আক্রান্তে প্রাণ হারিয়েছেন ৮ হাজার ৩০৯ জন। 

এদিকে দেড় লাখ ছাড়িয়েছে তুরস্কে আক্রান্তের সংখ্যা। আংশিক লকডাউনে থাকা দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৪ হাজার ২৪৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। 

আর দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে সবচেয়ে খারাপ অবস্থা ভারতে। দেশটির সংক্রমিতের ১ লাখ ১৮ হাজারের বেশি। মৃত্যু হয়েছে এখন পর্যন্ত ৩ হাজার ৫৮৪ জনের।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়