ঢাকা, শুক্রবার   ২৭ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ১৩ ১৪২৯

এপিএ বাস্তবায়নে সবার অংশগ্রহণের প্রত্যাশা ইউজিসি`র

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:৩১, ৬ জুন ২০২১  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির (এপিএ) যথাযথ বাস্তবায়নে প্রাতিষ্ঠানিক কার্যক্রমে আরও গতিশীলতা আনয়ন, দক্ষতা বৃদ্ধি ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। এপিএ’র লক্ষ্যগুলো একক কোনো বিভাগের প্রচেষ্টায় অর্জন করা সম্ভব নয়; এর জন্য প্রয়োজন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) সব বিভাগের সম্মিলিত প্রচেষ্টা।

শনিবার (৫ জুন) ইউজিসি আয়োজিত বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি বিষয়ক দিনব্যাপী প্রশিক্ষণের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপ্রধানের বক্তব্যে ইউজিসি সদস্য ও এপিএ টিমের আহ্বায়ক প্রফেসর ড. মো. আবু তাহের এ কথা বলেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন ইউজসি সচিব (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ড. ফেরদৌস জামান।

সভাপ্রধান তার বক্তব্যে বলেন, ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত দেশের কাতারে শামিল করার লক্ষ্যে বর্তমান সরকার কাজ করছে। এ লক্ষ্য অর্জনের জন্য ইতোমধ্যে বেশ কিছু দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়নের কাজ চলছে। যার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে- ভিশন ২০২১, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা, বদ্বীপ পরিকল্পনা, পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা ইত্যাদি। এসব পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য এরই মধ্যে প্রশাসনিক ক্ষেত্রে সংস্কারমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে এবং সেবাপ্রদান সহজীকরণ ও সাশ্রয়ী করতে বিভিন্ন সংস্কারমূলক কাজ অব্যাহত রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় ইউজিসির কাজের পরিধি পূর্বের যেকোনো সময়ের চেয়ে অনেক বেড়েছে। এই বিশাল কর্মকাণ্ড যথাযথভাবে বাস্তবায়নের জন্য প্রয়োজন সংশ্লিষ্ট সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টা ও অঙ্গীকার। তিনি এপিএ’র টার্গেট পূরণে ইউজিসি কর্মকর্তাদের আন্তরিকতা ও দক্ষতার সঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানান।

স্বাগত বক্তব্যে ড. ফেরদৗস জামান বলেন, ২০০৯ সালে সরকার গঠনের পর থেকে সরকারি সেবা সাধারণ মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে আইসিটি অবকাঠামো গড়ে তোলাসহ বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ ও বাস্তবায়নের কাজ চলছে। প্রশাসনিক কাজে স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও গতিশীলতা আনতে বিভিন্ন সংস্কারমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ ও বাস্তবায়নের কাজ অব্যাহত রয়েছে। এপিএ প্রবর্তন ও বাস্তবায়ন এই সংস্কার কার্যক্রমেরই অংশ। তিনি এপিএ’র লক্ষ্য বাস্তবায়নে ইউজিসির সব সদস্যকে আরও উদ্যোগী হওয়ার আহ্বান জানান।

কর্মশালায় এপিএ-বিষয়ক সেশন পরিচালনা করেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সহকারী সচিব এবং এপিএ’র দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফজলুর রহমান। কর্মশালায় ইউজিসির ২৬ জন উপপরিচালক ও উপসচিব অংশগ্রহণ করেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন ইউজিসি এপিএ’র ফোকাল পয়েন্ট মো. গোলাম দস্তগীর।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়