ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৮ অক্টোবর ২০২১ ||  কার্তিক ১২ ১৪২৮

ডা. জাফরুল্লাহকে নিয়ে বিএনপিতে বিভাজন

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:০০, ২৯ জুন ২০২১  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

সম্প্রতি জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও বিএনপির শরিক জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বিএনপির প্রধান নেতৃত্বের সমালোচনা করেছেন। এ ঘটনায় তাকে নিয়ে বিএনপির মধ্যে বিভাজন তৈরি হয়েছে।

ওই সভায় ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, বিএনপির ক্ষমতায় আসারই ইচ্ছা নেই। ক্ষমতায় আসতে হলে ইচ্ছা, আগ্রহ থাকতে হবে। সঙ্গে সঙ্গে তাকে পরিকল্পনা করতে হবে যে, কোন কোন জায়গায় পরিবর্তন আনবে। সেগুলো নিয়ে আলোচনার প্রয়োজন। আজকে বিএনপি পরিচালিত হচ্ছে ওহি দিয়ে! বিএনপির জন্য সমস্যা তৈরি করছেন তারেক রহমান।

তিনি আরো বলেন, বিএনপি বড় দল হিসেবে দায়িত্ব পালন করতে পারছে না। দুর্ভাগ্যবশত তাদের অন্তর্নিহিত সমস্যার কারণে তারা এটি করতে পারছে না। তারেক রহমানের কারণে এই সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে। তারেক বনাম স্ট্যান্ডিং কমিটির সমস্যার কারণেই মূলত এটা ঘটছে। এখন তারেকের দায়িত্ব বিএনপির অন্তর্নিহিত সমস্যাগুলোর সমাধান করা। তারেক যেহেতু বাইরে আছেন, তার সেহেতু অবসরে যাওয়া উচিত। তাই তারেককে দুই বছরের জন্য সরে দাঁড়ানোই দলের জন্য মঙ্গল।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মতে, মূলত রাজনৈতিক মাঠে বিএনপির বারবার পরাজয়ে কিছুটা ক্ষোভ থেকেই এমন মন্তব্য করেছিলেন ডা. জাফরুল্লাহ।

তবে তার এমন কথায় দলের মির্জা ফখরুলপন্থীরা পূর্ণ সমর্থন দিয়েছেন। তাদের মতে, মাঠের রাজনীতি করা মির্জা ফখরুল দল সম্পর্কিত বিভিন্ন সিদ্ধান্ত নিলেও তারেক রহমানের ইন্ধনে শেষ পর্যন্ত তা ফলপ্রসূ হয় না। এ কারণেই বিএনপি পদে পদে ধরা খাচ্ছে। এমতাবস্থায় লন্ডনে থাকা তারেক রহমানকে যদি আপাতত পদ থেকে সরিয়ে দিয়ে নতুন নেতৃত্বে দল গঠন করা হয়, তবে অবশ্যই বিএনপি আগামীতে আরো ভালো করতে পারবে।

এদিকে তারেকপন্থী নেতাদের ধারণা, ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী হলেন ঐক্যফ্রন্ট নেতা। গেল জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যাদের বিএনপির জন্য কোনো ভূমিকাই ছিল না।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলেন, বর্তমানে দলের নানা ইস্যুতে বিএনপি ও তারেক রহমানের ভূমিকা সমালোচিত হয়েছে। ডা. জাফরুল্লাহ’র এমন মন্তব্যের পর এসব বিষয় আরো প্রকাশ্যে এসেছে।

আরও পড়ুন
সর্বশেষ
জনপ্রিয়