ঢাকা, শনিবার   ২৫ জুন ২০২২ ||  আষাঢ় ১০ ১৪২৯

আজ বাংলাদেশকে অনুসরণ করছে সারাবিশ্ব: পলক

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১০:২৮, ২৫ এপ্রিল ২০২২  

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, শ্রীলংকার অর্থনৈতিক অবস্থা নিয়ে আমাদের দুশ্চিতার কোনো কিছু নেই। সেদেশে শেখ হাসিনার মতো সাহসী, দূরদর্শী ও সৎ নেতৃত্ব নেই বলে আজ তাদের এ অবস্থা। কিন্তু বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল। সারাবিশ্ব আজ বাংলাদেশকে অনুসরণ করছে।

গত রোববার ঢাকা নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের পাশে নম পার্কে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টারের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমি শৈশব-কৈশোর থেকে শামীম ওসমানের ভক্ত। নারায়ণগঞ্জের জন্য কিছু করতে তিনি আমাকে বলেছেন। আমি আমাদের সজীব ওয়াজেদ জয়ের কাছে আবেদন করেছিলাম। এরপর অনেক জেলায় আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টার করার অনুমতি পাওয়া গেছে। কিন্তু সব জেলায় শামীম ওসমান না থাকায় সেন্টারগুলো করা যাচ্ছে না। শামীম ওসনামের নেতৃত্বে আমরা নারায়ণগঞ্জে চমৎকার একটি জায়গা পেয়েছি।

সজীব ওয়াজেদ জয় আমাদের বলেছিলেন, একজন ক্ষুধার্ত মানুষকে যদি আহারের জন্য একটি মাছ দেন তাহলে তার এক বেলার খাবার হবে। যদি তাকে মৎস্য শিকার করা শিখিয়ে দেন তাহলে তার সারাজীবনের খাবার হবে।

প্রতিমন্ত্রী পলক বলেন, স্বাধীনতার ৫০ বছরে সজিব ওয়াজেদ জয়ের মতো কেউ কখনো বাংলাদেশের উন্নয়নে এতো পরিকল্পনা দেননি। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয় সেই পরিকল্পনা এবং সিদ্ধান্ত দিয়েছেন। তাই আমাদের তরুণ সমাজের পক্ষ থেকে তাদের আন্তরিক অভিনন্দন জানাই।

তিনি আরো বলেন, এক সময় বিএনপির একজন মন্ত্রীর মালিকানায় ছিল বাংলাদেশে একটি মোবাইল কোম্পানি। তখন একটি কোম্পানি থাকায় অনেক বেশি টাকা কলচার্জ নেয়া হতো। পরে আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগে দেশে একের পর মোবাইল কোম্পানি আসায় প্রতিযোগিতা শুরু হলে সবকিছুর দাম কমে আসে। ২০০৪ সালে যখন স্যামসাং কোম্পানি বিনিয়োগের প্রস্তাব নিয়ে এসেছিল তখন বিএনপির হাওয়া ভবনের কু-প্রস্তাব দুর্নীতির কারণে সেটা সম্ভব হয়নি। তারা তখন ফিরে গিয়ে ২০০৭ সালে ভিয়েতনামে বিনিয়োগ করেছিল। এতে বাংলাদেশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল।

অনুষ্ঠানের শুরুতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে ১৭ জন ছাত্রছাত্রীর হাতে ল্যাপটপ তুলে দেওয়া হয়।

সেন্টারের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি এ কে এম শামীম ওসমানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম, বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (গ্রেড-১) ডা. বিকর্ণ কুমার ঘোষ, বাংলাদেশ ডিজেল প্ল্যান্ট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ মো. রফিকুল ইসলাম, শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টার স্থাপন (১১ জেলা) প্রকল্পের পরিচালক এ কে এম আব্দুল্লাহ খান, নারায়ণগঞ্জের ডিসি মো. মঞ্জুরুল হাফিজ, এসপি মোহাম্মদ জায়েদুল আলম, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ মোল বাদল, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহা প্রমুখ।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়