ঢাকা, সোমবার   ২৩ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ৯ ১৪২৯

Covid 4th Wave-এর আগে বাড়িয়ে নিন ইমিউনিটি! জানুন চিকিৎসকের পরামর

স্বাস্থ্য ডেস্ক

প্রকাশিত: ১০:২২, ৭ মে ২০২২  

সংগৃহীত

সংগৃহীত

Boost Immunity: দেশে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। এক্ষেত্রে আক্রান্তের সংখ্যা থাকছে ৩ হাজারের উপর। এই অবস্থায় Covid 4th Wave-এর আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। এমন পরিস্থিতিতে নিজের ইমিউনিটি বাড়িয়ে নিতে পারলেই সবথেকে বেশি লাভ। এক্ষেত্রে রোগ নিয়ন্ত্রণ, নিয়মিত ব্যায়াম ও ডায়েট করুন।

ফের বাড়তে শুরু করেছে করোনা। দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়ে গিয়েছে প্রায় ৩ হাজার। আর এর মধ্যেই চতুর্থ ঢেউয়ের আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। এক্ষেত্রে ইতিমধ্যেই দেশের কিছু রাজ্যে বেড়েছে সংক্রমণ। এই সংক্রমণ বেড়েছে ছোটদের মধ্যেও। তাই সকলকেই সতর্ক থাকতে বলছেন বিশেষজ্ঞরা।

আসলে করোনার এই বাড়বাড়ন্তের মধ্যে শরীর ঠিক রাখতে চাইলে বাড়িয়ে নিতে হবে ইমিউনিটি (Immunity)। এক্ষেত্রে ইমিউনিটি হল শরীরের নিজস্ব রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা। অর্থাৎ বাইরে থেকে কোনও জীবাণু হামলা চালালে শরীরের এই সৈন্য বাহিনী যুদ্ধে নামে। তারপর এই সৈন্যরা যুদ্ধে জিত গেলে রোগ হয় না। আর হেরে গেলে রোগ হয়। এবার করোনার মতো ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করতে গেলে এই সৈন্যদলকে অবশ্যই জিততে হবে। নইলে বাঁচা সম্ভব হবে না। তাই প্রতিটি মানুষকে সতর্ক হয়ে বাড়িয়ে নিতে হবে ইমিউনিটি।

এই বিষয়ে ঢাকুরিয়া আমরি হাসপাতালের বিশিষ্ট মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা: রুদ্রজিৎ পাল বলেন, ভাইরাসের সঙ্গে লড়াই করতে গেলে ইমিউনিটি বাড়িয়ে নেওয়া দরকার। তবে এই ইমিউনিটি ম্যাজিকের মতো বাড়িয়ে নেওয়া যাবে না। এর পিছনে কিছুটা হলেও সময় ব্যয় করতে হবে। তবেই সমস্যা থেকে রেহাই পাওয়া হবে সম্ভব।

এবার ইমিউনিটি বাড়ানোর জন্য আমাদের নির্দিষ্ট কিছু বিষয় মেনে চলতে হবে। এবার আসুন সেই বিষয়গুলি সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।
 

​রোগ নিয়ন্ত্রণ

আমাদের মধ্যে বেশিরভাগ মানুষই এখন ক্রনিক রোগে আক্রান্ত। বাড়িবাড়িতে রয়েছে সুগার (Diabetes), প্রেশার (Blood Pressure), কিডনি (Kidney Disease), লিভারের অসুখে (Liver Disease) আক্রান্ত রোগী। এবার এই রোগীদের ক্ষেত্রে শরীরে ইমিউনিটি অনেকটাই কম থাকে বলে জানাচ্ছেন ডা: পাল। তাঁর কথায়, এই রোগগুলিকে একদম নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে। মাঝেমাঝেই পরীক্ষা করা দরকার। তবেই সমস্যার হতে পারে সমাধান। এছাড়া চিকিৎসকের কাছে গিয়ে চিকিৎসা করাও অত্যন্ত জরুরি। তবেই ভালো থাকতে পারা যাবে।

​ঘুম

ঘুম (Sleep) আমাদের অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। কারণ ঘুমের ভিতরই শরীর নিজেকে সারিয়ে নিতে থাকে। এবার আপনি ঠিকমতো না ঘুমালে শরীরের বিপাক ক্রিয়া ঠিকমতো কাজ করে না। এমনকী গঠন প্রক্রিয়ায় ব্যাহত হয়। কমে ইমিউনিটি। তাই প্রতিটি মানুষের দিনে অন্তত পক্ষে ৬ থেকে ৮ ঘণ্টা ঘুম প্রয়োজন। বিশেষত, শরীরে কোনও রোগ থাকলে তো এই ঘুম আরও প্রয়োজন। তাই এবার থেকে ঘুমের সঙ্গে আপোস নয়।

​নিয়মিত ব্যায়াম

ব্যায়াম বা এক্সারসাইজ (Exercise) হল একেবারে মাস্ট। কারণ ব্যায়াম করতে পারলে শরীরে নানা ধরনের উপকার মেলে। এক্ষেত্রে শরীর থেকে ভালো পরিমাণ ক্যালোরি ঝরে যায়। তাই প্রতিটি মানুষের প্রতিদিন ব্যায়াম করা উচিত বলে জানাচ্ছেন ডা:পাল। তাঁর কথায়, প্রতিটি মানুষের দিনে অন্তত পক্ষে ৩০ মিনিট ব্যায়াম করা উচিত। এক্ষেত্রে সাইকেল চালানো, সাঁতার, দৌড়ানো ইত্যাদি এরোবিক্স এক্সারসাইজ করতে পারলে সবথেকে ভালো হয়। এছাড়া জিমেও ঘাম ঝরাতে পারেন। এগুলো কিছু না পারলে সাধারণ হাঁটাহাঁটি করা যেতে পারে।

​ডায়েট

ইমিউনিটি বাড়ানোর জন্য খাবারের দিকে নজর দেওয়া অত্যন্ত জরুরি। এক্ষেত্রে কার্বোহাইড্রেট, প্রোটিন, ফ্যাটের মধ্যে একটা সমাঞ্জস্য থাকতে হবে। এক্ষেত্রে ডায়েটে (Diet) থাক মরশুমি ফল, শাক, সবজি। এই খাবারে থাকা মিনারেল, ভিটামিন ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। এছাড়া বাইরের তেল, ঝাল, মশলা সমৃদ্ধ খাবারও ছেড়ে দেওয়া উচিত বলে জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক।

​টিকা নেওয়া চাই

ডা: পালের মতে, টিকা আপনাকে নিতেই হবে। কারণ এই টিকাই (Vaccine) পারে অনেক সমস্যার সমাধান করে দিতে। এক্ষেত্রে টিকা নিলে কোভিড প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি হয়। আর সবথেকে বড় কথা, রোগ না আটকাতে পারলেও, টিকা নেওয়া থাকলে রোগ সাধারণত খারাপ দিকে যায় না। তাই প্রতিটি মানুষের নেওয়া উচিত টিকা। তবেই ভালো থাকতে পারবেন।

বিদ্র: প্রতিবেদনটি সচেতনতার উদ্দেশ্যে লেখা হয়েছে। কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়