ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০৬ অক্টোবর ২০২২ ||  আশ্বিন ২১ ১৪২৯

দেশমাতৃকার সেবায় সর্বদা নিয়োজিত রয়েছে সেনাবাহিনী: সেনাপ্রধান

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৯:২০, ৬ জানুয়ারি ২০২২  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ বলেছেন, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী দেশমাতৃকার সেবায় সর্বদা নিয়োজিত রয়েছে। যেকোনো দুর্যোগ পরিস্থিতি মোকাবেলায় এবং দেশের সব প্রয়োজনে সেনাবাহিনী সাধারণ মানুষের পাশে থেকে দেশ গঠনে নিরলস প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবে।

খুলনার শহীদ শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে ৫৫ পদাতিক ডিভিশন আয়োজিত হতদরিদ্র মানুষের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণকালে তিনি এ কথা বলেন। অনুষ্ঠানে প্রায় ছয় হাজার হতদরিদ্র মানুষের হাতে কম্বল তুলে দেয়া হয়। ভবিষ্যতেও সেনাবাহিনী এ ধরনের জনসেবামূলক কর্মকাণ্ড অব্যাহত রাখবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন সেনাপ্রধান। এর আগে সেনাপ্রধান খুলনার জাহানাবাদ সেনানিবাসে ১৫ তলাবিশিষ্ট আবাসিক ‘সেনানীড়’ ভবন নির্মাণ প্রকল্পের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।

সেনাবাহিনী প্রধানের সাথে সেনাবাহিনীর অ্যাডজুটেন্ট জেনারেল মেজর জেনারেল শাকিল আহমেদ, এসবিপি, ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজের সিনিয়র ডাইরেক্টিং স্টাফ মেজর জেনারেল এ কে এম আমিনুল হক, এনডিসি, জিওসি ৫৫ পদাতিক ডিভিশন ও এরিয়া কমান্ডার যশোর এরিয়া মেজর জেনারেল মো: নূরুল আনোয়ার এবং জিওসি ০৭ পদাতিক ডিভিশন ও এরিয়া কমান্ডার বরিশাল এরিয়া মেজর জেনারেল খান ফিরোজ আহমেদসহ সেনাবাহিনীর ঊর্ধ্বতন সামরিক কর্মকর্তারা, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এবং স্থানীয় প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক ও অনলাইন মিডিয়ার সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

টুঙ্গিপাড়ায় সেনাবাহিনী প্রধানের শীতবস্ত্র বিতরণ সেনাবাহিনী প্রধান
জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মভূমি গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় গমন করেন। সেনাবাহিনী প্রধানের নির্দেশে প্রতি বছরের মতো এ বছরও শীত মৌসুমে অসহায় ও দরিদ্র শীতার্ত মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণসহ নানাবিধ জনসেবামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করছে সেনাবাহিনী। এরই ধারাবাহিকতায় ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের শীতকালীন প্রশিক্ষণ পরিদর্শন শেষে টুঙ্গিপাড়া উপজেলা কমপ্লেক্স সংলগ্ন মাঠে সেনাবাহিনী প্রধান স্থানীয় হতদরিদ্র ১৫০০ জন মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করেন।

আর্মি ওয়েল ফেয়ার ট্রাস্ট কর্তৃক প্রায় সব সেনানিবাসে ‘সেনানীড়’ প্রকল্পের কাজ হাতে নেয়া হয়েছে। পর্যায়ক্রমে বিভিন্ন সেনানিবাসে সর্বমোট ১৫টি সেনানীড় আবাসনের নির্মাণ কার্যক্রম শুরু করা হয়, যার মধ্যে সাতটির নির্মাণকাজ সম্পন্ন হয়েছে এবং বাকি আটটির নির্মাণকাজ চলমান। এই আবাসনগুলোতে বর্তমানে ৯৫৮টি পরিবার বসবাস করে সুফল ভোগ করছেন।

উল্লেখ্য, সেনাবাহিনী প্রধান ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের শীতকালীন প্রশিক্ষণ পরিদর্শন করেন এবং একই সাথে নড়াইল জেলার লোহাগড়ায় হতদরিদ্র মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেন। এ ছাড়া গতকাল তিনি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সুপারভিশনে মধুমতি নদীর ওপর নির্মিতব্য রেল সেতু প্রজেক্ট পরিদর্শন করেন।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়