ঢাকা, সোমবার   ২২ জুলাই ২০২৪ ||  শ্রাবণ ৭ ১৪৩১

সিঙ্গাপুরে আবদুল আউয়াল মিন্টুর ৮০ কোটি ডলারের সম্পদ জব্দ

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:৩৬, ৪ অক্টোবর ২০২৩  

আবদুল আউয়াল মিন্টু

আবদুল আউয়াল মিন্টু

অর্থপাচারকারীদের বিরুদ্ধে সিঙ্গাপুরে শুরু হওয়া কঠোর অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এই অভিযানে এখন পর্যন্ত ২৮০ কোটি সিঙ্গাপুরিয়ান ডলার (২০০ কোটি মার্কিন ডলার) সমমূল্যের সম্পদ বাজেয়াপ্ত করেছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। এরমধ্যে ধরা পড়েছে বিএনপির জায়ান্ট ব্যবসায়ী নেতা ও খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা আবদুল আউয়াল মিন্টু। সিঙ্গাপুরে পাচার করা অর্থে গড়া অবৈধ সম্পত্তির মধ্য থেকে তার ৩টি বিলাসবহুল বাড়ি ও ২টি গাড়ি ব্যাংকের ভোল্টে থাকা ৫০টি সোনার বার জব্দ করেছে সিঙ্গাপুর আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

এর আগে, গত আগস্টের মাঝামাঝি একযোগে অভিযান চালিয়ে ১০ বিদেশিকে গ্রেফতার করে সিঙ্গাপুর কর্তৃপক্ষ। যেখানে আবদুল আউয়াল মিন্টুর ৪ জন ঘনিষ্ট বন্ধু রয়েছেন বলে জানা গেছে।

সূত্র মারফত জানা যায়, তাদের কাছ থেকে বিলাসবহুল সম্পত্তি, গাড়ি, সোনার বার, ডিজাইনার হ্যান্ডব্যাগ এবং প্রায় ১০০ কোটি সিঙ্গাপুরিয়ান ডলার মূল্যের গহনা পাওয়া গেছে। জানা যায়, ২০০১ থেকে ০৫ বিএনপি-জামায়াত শাসনামলে বিএনপি নেতাদের অর্থপাচারের সহযোগী ছিলেন এই চার জন।

সিঙ্গাপুরের পার্লামেন্টে দেশটির স্বরাষ্ট্র বিষয়ক দ্বিতীয় মন্ত্রী জোসেফাইন টিও বলেছেন, সাম্প্রতিক গ্রেফতার ও তদন্ত দেখিয়ে দিয়েছে, সিঙ্গাপুর সন্দেহজনক ব্যক্তি ও কর্মকাণ্ড শনাক্ত করতে সক্ষম। তাই শীঘ্রই অর্থপাচার-বিরোধী ব্যবস্থা পর্যালোচনার জন্য একটি আন্তঃমন্ত্রণালয় প্যানেল গঠন করা হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

এদিকে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম রয়টার্সে এ সংবাদ প্রকাশ পাওয়ার পর বিএনপির অনেক নেতাই অতঙ্কে রয়েছেন বলে জানিয়েছেন দলটির বিশ্বস্ত একটি সূত্র। জানা গেছে, খালেদা জিয়া, তারেক রহমান, মির্জা আব্বাস, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরীসহ সিঙ্গাপুরে থাকা সম্পত্তি বিক্রি করার তদবির শুরু করেছেন। সম্প্রতি আমির খসরু সিঙ্গাপুর সফর করেছিলেন- তারেক রহমান ও নিজের সম্পত্তি বিক্রির উদ্দেশ্যে। সূত্র বলছে, অল্প দামে বেশকিছু সম্পত্তি বিক্রি করেছেন তিনি।

রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, ক্ষমতায় থাকতে বিএনপি নেতারা জনগণের হাজার হাজার কোটি টাকা পাচার করেছে। সেই টাকায় বিভিন্ন দেশে ক্যাসিনো, পাব-ক্লাবসহ অবৈধ ব্যবসায় বিপূল টাকা ইনভেস্ট করেছে। এখন তারা সে সব দেশের নিরাপত্তার জন্য হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে, তাই দেশে দেশে তাদের সম্পত্তি জব্দ করা হচ্ছে।

সর্বশেষ
জনপ্রিয়